fbpx
Home বিনোদন যিশু VS আবির। সঞ্চালনায় কে শ্রেষ্ঠ

যিশু VS আবির। সঞ্চালনায় কে শ্রেষ্ঠ

যিশু  বনাম আবির এই লড়াইটা আজকের না। বিগত কিছু বছর ধরেই চলে আসছে হয়তো ব্যক্তিগতভাবে নয় কিন্তু পেশাদারিত্বের দিক থেকে তো অবশ্যই। সে  সিনেমার রূপোলী পর্দা থেকে রিয়েলিটি শোর মঞ্চ হোক না কেন  কেউই কাউকে একচুল মাটি ছাড়তে নারাজ।  দুজনেই সকলের হার্টথ্রব যদিইও দুজনেই বিবাহিত কিন্তু তাতে কি এসে গেল। রূপ, অভিনয়, সঞ্চালনার যাদু খাঁটিয়ে কাবু করে রেখেছে দর্শকমহলীকে। অভিনয় এর দিক থেকে দুই জনেই রয়েছে এক নম্বর সারিতে, কেউই কম যায় না। ব্যোমকেশেও দুজন দুজনকে টক্কর দিয়েছে। এছাড়া দুজনেই বেশ ভালো কমিক চরিত্রকে ফুটিয়ে তুলতে পারে। এতো গেল রূপোলী পর্দায় অভিনয়  এর দিক। কিন্তু রুপলী পর্দা ছেড়ে যখন তারা সঞ্চালনার মঞ্চে নেমেছে সেখানেই বেঁধেছে গোল। কারন বরাবর একজন দ্বারা যদি বহুকালের রিয়েলিটি-শো সঞ্চালন হতে থাকে তাহলে পর্বগুলি বেশ জমে যায়। কিন্তু হটাৎ করে সেখানে তার পরিবর্তে যদি অন্য কাউকে এসে বসানো হয়  দর্শক কিন্তু চটজলদি তাকে মানতে পারে না। ধাতস্ত হতে একটু সময় লাগে।

যিশু ও আবিরের পেশা এক থাকলেও চারিত্রক, স্বভাবগত দিক থেকে দুজনেই আলদা, কেউ শান্ত শিষ্ট তো কেউ প্রানচ্ছল, খলামেলা।  অর্থাৎ যিশু এক্সট্রোভার্ট তো আবির ইন্ট্রোভাট। সেটা তাঁদের সঞ্চালনার মধ্যে নিঁখুদভাবে ফুটে ওঠে।

 কিন্তু এবার যিশুর জুতোয় পা গলালো আবির। বিগত এক মাস যাবত জি-বাংলার জনপ্রিয় রিয়্যালিটি-শো ‘সা রে গা মা পা’ এর মঞ্চে সঞ্চালকের ভূমিকায় যিশুর জায়গা দখল করেছে আবির চ্যাটার্জি।  এতদিন নিজের চঞ্চল স্বভাবে ‘সারেগামাপা’র মঞ্চ মাতিয়ে রাখতেন যিশু সেনগুপ্ত। একটা স্পন্টেনিয়াস এনার্জি যেন তার মধ্যে সব সময় কাজ করে। কখনও প্রতিযোগীদের সঙ্গে মিলে মঞ্চ পরিষ্কার করতেন, কখনও শুটিংয়ের অবসরে বিচারক শান্তনু মৈত্রর সঙ্গে বল নিয়ে ক্রিকেট খেলতেন, আবার মঞ্চে আনমনে পছন্দের ড্রাম নিয়ে বসে পড়তেন, কখনও কোন অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে সকলের সাথে জমিয়ে পাত পেড়ে খেত, আবার কখনও সকলের সুরে সুর মেলাতেন। এই সমস্ত দৃশ্য এখন অতীত হয়ে গেছে। কারন এখন তার স্থানে যিনি এসেছেন সে তার মতো প্রাণোচ্ছল মনোভাবের নয়। অ্যাঙ্কারিং জগতে তার হাতেখড়ি । তাই সঞ্চালনার মধ্যে রয়েছে  ধীর স্থির ভাব। কারন সে সম্পুর্ন আলাদা একটি মানুষ, চিন্তাধারা, বিচারবুদ্ধি, দক্ষতা সবই আলাদা।  তাই স্বাভাবিক ভাবেই তার পদক্ষেপ, সঞ্চালনা আলাদাই হবে। অভিনয় জগত থেকে উঠে সে যে এই নন- ফিকশন জগতে পা রেখেছেন এটাই অনেকটা সাহসের বিষয়।অ্যাঙ্কারিং এর ময়দানে দু জন দুজনের দিক থেকে সেরা।

আবিরকে সারেগামাপার মঞ্চে মানিয়ে নিতে বেগ পেতে হচ্ছে। অনেকেই বলেছেন এই মঞ্চে শোভা পায় শুধু যিশু সেনগুপ্তকে। যারা আবিরের শুভাকাঙ্খী তারাও একই সুরে গান গাইছে। তাঁদের প্রিয় নায়ক আবির হলেও তারা সেই গানের মঞ্চে দেখতে চান প্রিয় যিশুকে। তাহলে কি আবির পারবে না জি বাংলার  সেরা সিয়েলিটি শো এর টি আর পি  ধরে রাখতে? নাকি সে সত্যি হেরে যাবে? সকল অনুগামীদের মনে যিশু যে ছাপ ফেলেছিল আবির কি পারবে সেই ছাপ ফেলতে?

কিন্তু হটাৎ করে কি এমন হল যার জন্য এই আমুল পরিবর্তন,দর্শকমহলীর কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছে। তালে কি জি-বংলার সাথে  তার চুক্তির এখানেই ইতি  নাকি কোন ব্যক্তিগত টানাপোড়ন বা প্রতিপক্ষ চ্যানেলের সাথে হাত মিলিয়ে গানের রিয়ালিটি শো ‘সুপার সিঙ্গার’-এর সঞ্চালনা করেছেন যিশু  তার জন্যই কি গুনতে হল মাশুল? সেই কারণেই কি ‘সারেগামাপা’র নতুন মরশুমে সঞ্চালক হিসেবে যিশুকে বিদায় জানিয়ে ঘটল আবিরের আগমন?  ? সকলের মনে ভিড় করে আসছে এক ঝাঁক প্রশ্ন।  

অন্যদিকে যিশু কম যায় না থেমে থাকার ছেল সে নয়।। তার হাতে যে সারেগামাপা ছাড়া অনেক প্রোজেক্ট আছে তা তিনি প্রমান করে দিয়েছেন। এতদিন  যিশু মেতেছিলেন স্টার জলাস গানের রিয়্যালিটি শো ‘সুপার সিঙ্গারে’ র এখন ‘হাসিওয়ালা এন্ড কোম্পানিতে’ সেখানেও কিন্তু সে সকলকে জমিয়ে রেখেছে। কারন তার সঞ্চালনার মধ্যে আলাদাই এক যাদু আছে, সে যেখানেই যায় সবাইকে মাতিয়ে দেয়। তার সেই স্পনটেনিয়াস এনার্জি সকলের মধ্যে থাকে না। তাই সঞ্চালনা মানেই সকলের চোখে যিশু সেনগুপ্তের ছবি ভেসে ওঠে।

যিশুর আবেদন সকলের কাছে এক আলাদাই। সারেগামাপায় গানের সাথে সাথে আবেগ বলতে যিশু সেনগুপ্তের সঞ্চালনা, সেই হাসি। এর সেই  পুরনো আবেগকে আবির ধরে রাখতে পারবে কি না তা সময় বলে দেবে ।
 

এবার আপনারা বলুন কে সবথেকে ভাল সঞ্চালক ? আপনাদের চোখে  কাকে শ্রেষ্ঠ বলে মনে হয়? আপনাদের কাছে কি যিশুর সেই আবেদনকে আবির কেড়ে নিতে পেরেছে আমাদের জানান আপনার মতামত।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here