ফোন হল একরকম জানালা যেই জানালা দিয়ে উঁকি মারলে গোটা বিশ্বকে চাক্ষুশ করা যায়। তাই ফোন ছাড়া বর্তমান মানুষের জীবন একপ্রকার অর্থবিহিন। বলা যেতে পারে  ফোন তার জীবনের অন্তরায়। অফিসের কাজ হোক কিংবা হেসেলে মাংস রান্নার পদ্ধতি, বা বিভিন্ন রঙ্গীন বেরনীন ছবি তোলার স্বাদ পূরণ হয় এই একরত্তি ফোনের মাধ্যমে। তাই আজকাল যেই সেই ফোনে কারোরই মন ভরে না। হয় আন্ড্রয়েড নতুবা আই-ফোন । এই সকল ফোন ছাড়া আদ্যিকালের ফোনে সকলেরই অরুচি, দেখলেই ভ্রু কুঁচকায়। কিন্তু যত আধুনিকতা তত বেশী ঝামেলা। আর এই ঝামেলা থেকে ফোনই বা বাদ যায় কেন। এইটুকু চারকোণা ফোনের উপর যদি এত বোঝা এসে পড়ে যে কেউই ঐ ভারের বোঝায় নুইয়ে যাবে। ফোন মেমোরিও  তাই। নতুন থেকে একটু পুরনো হতেই একটাই নটিফিকেশন বা এলার্ট ম্যেসেজ। your phone memory is full.

 বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের সাধারণ একটি সমস্যা হল স্টোরেজের। দৈনন্দিন জীবনে স্মার্টফোনের যেমন বৃদ্ধি পেয়েছে, তাতে কম পড়ে যাচ্ছে ফোনের স্টোরেজ ক্যাপাসিটি। এটি একটি সত্যি বিরক্তিকর পরিস্থিতি। যার মুক্তির উপায় হিসেবে কিছু ফাইল কিংবা, ছবি বা ভিডিও ডিলিট করলেও সমাধান হয় না। তাই কিভাবে পাবে এই মেমোরি ফুল হওয়ার থেকে মুক্তি জেনে নিন। নিম্নলিখিত আই সকল ট্রিকস মেনে চললেই ফোনের অনেক জায়গা খালি হয়ে যাবে। 

Cache ডেটা ক্লিয়ার করা

আমরা রোজকার দিনে যে সমস্ত অ্যাপগুলি প্রায় সর্বক্ষন ব্যবহার করে থাকি সেই অ্যাপগুলি  নিজেদের Cache ডেটাগুলি একত্রিত করতে থাকে। এই ডেটাগুলোও জমে জমে আমাদের ফোনের স্টোরেজ নষ্ট করার পাশাপাশি ফোনকে আরও বেশী স্লো ও করে দেয় । এই ধরনের অপ্রয়োজনীয় ডেটাগুলোকে ক্লিয়ার করার জন্য  Settings> Cache Data যেতে হবে এবং Cache ডেটা ক্লিয়ার করতে হবে। দেখবেন আপনার ফনের অনেক স্পেস ফাঁকা হয়ে গেছে কোন অতিরিক্ত অ্যাপ ইন্সটল করা ছাড়াই।

গুগল ফটোতে ব্যাকআপ হওয়া ফটোকে ডিলিট করার মাধ্যমে

আমরা আমদের জীবনের সুরক্ষার জন্য যেমন অনেক ব্যবস্থা নিয়ে থাকি তেমনই প্রয়োজনীয় ছবি বা ভিডিও কে সুরক্ষিত করার জন্য গুগল ফটোতে ব্যাকআপ করে থাকি। যাতে কোনভাবে ফোন হারিয়ে গেলে বা নতুন কোন ফোন কিনলে ইমেইল আইডি দিয়ে লগইন করলে ফটোগুলো পুরনায় পেতে পারি। কিন্তু আমরা সেখানে একটি ভুল করে বসি ব্যাকআপ থাকা সত্ত্বেও আমরা ফোন মেমোরিতে ছবিগুলি স্টোর করে রাখি যা অবাঞ্ছনীয়। তাই ব্যাকআপ করা ছবি গুলি গুগল স্টোরে রাখার পর সেগুলি ফোন গ্যালারি থেকে ডিলিট করে দিলে প্রচুর  স্টোরেজ ক্লিয়ার হয়।

হোয়াটসঅ্যাপের ডেটা ক্লিয়ার

আমারা সারাক্ষন চ্যাটের মাধ্যমে বিভিন্ন মানুষের সাথে বিভিন্ন কোথা বলে থাকি। কিন্তু তারপর সেগুলো অবাঞ্ছিত হয়েই পড়ে থাকে। যার ফলে অনেক স্টোরেজ নষ্ট হয়। তাই প্রথমে  ফোনে হোয়াটসঅ্যাপ ওপেন করুন এবং সেটিং অপশনে যান। এরপর Data and Storage usage অপশনে যান। এখানে  একটি লিস্ট দেখতে পাবেন। এই লিস্টে Photos, Audio, Videos, Documents এর মতো কিছু অপশন  আর পাশাপাশি Storage Usage পাবেন। সেখানে ক্লিক করার পর একটি লম্বা লিস্ট আসবে ।এই লিস্টে কনটাক্ট ও গ্রুপের দ্বারা যত স্টোরেজ নষ্ট হয়েছে সেটি থাকবে। এই লিস্টে যে গ্রুপ বা কনটাক্ট এ আমার অবাঞ্চিত মনে হবে সেগুলোকে ডিলিট করতে দিতে হবে ফলে  আপনি আপনার  ফোনের স্টোরেজ অনেক বাড়াতে পারেন।

ক্লিনারের ব্যবহার

আমরা ফোন ব্যবহার করি কিন্তু তার যত্ন করি না। হ্যাঁ অনেকেই বলবে করি তো স্ক্রিন গার্ড লাগাই, কভার দি, সিকিউরিটি প্ল্যান ভরি। কিন্তু শুধু কি বাইরে দিক থেকে সুন্দর রাখলে চলবে। আমরা নিজেদের যেমন বাইরে দিয়ে সুন্দর রাখি তেমনই শরীরের ভেতরের বিভিন্ন অঙ্গকে সুন্দর রাখতে বিশেষ ব্যবস্থা নি। ফোনের ক্ষেত্রেও অনেকটা তেমন আমরা ফোনের জন্য বাইরের সুরক্ষা প্রদান করি। ভেতরের সুরক্ষার জন্য ১ সপ্তাহ অন্তর সমস্ত স্টোরেজ ক্লিন করুন।  প্রথমে ফোনের File manager> Cleaner  এ গিয়ে সব ক্লিয়ার করুন।  ক্লিন করার ফলে অনেক জাঙ্ক ফাইল ডিলিট হয়ে যায় এবং ফোনের স্টোরেজ বৃদ্ধি পায়।

গুগল ড্রাইভ বা ক্লাউডে সেভ করা

ই-মেলের সঙ্গে যুক্ত ফাইলগুলিও আমরা ফোনেই সেভ করে থাকি। এছাড়া কোন দরকারি নথি, ভিডিও, ডকুমেন্ট আমরা ডাউনলোড করে ফোন মেমারিতে জায়গা দি। কিন্তু যদি আমরা এই সকল তথ্যকে  গুগল ড্রাইভ বা ক্লাউডে স্থানান্তরিত করে ফোন মেমোরি থেকে ডিলিট করি  তাহলে আমাদের ফোন মেমোরি থেকে অনেক স্পেস ফাঁকা হবে এবং প্রতিনিয়ত মেমোরি ফুল এলার্ট দেখাবে না। 

এইভাবে উপরিউক্ত বিষয়গুলি মাথায় রেখে আপনার ফোনকে অরিতিক্ত স্টোরেজ মুক্ত করুন। যত বেশী ফ্রি স্পেস পাবে তত আপনার ফোন দ্রুত কাজ করবে ও অনেক তথ্য সংগ্রহীত করতে পারবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here