একবিংশ শতাব্দীতেও যে রহস্যের সমাধান করা গেল না তা হল বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল।আটলান্টিক মহাসাগরের বুকে ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জে লুকিয়ে থাকা একটি কাল্পনিক ত্রিভুজআকৃতি জলভাগে তলিয়ে গেছে কত জাহাজ ও বিমান। চলতি উপকথা অনুযায়ী এসবের জন্য দায়ী কোন অপ্রাকৃত শক্তি। হতে পারে এতে হাত রয়েছে ভিনগ্রহের প্রাণীদেরও! বিশেষজ্ঞদের মতে সেসব কিছুই নয়, রহস্যের কিনারা নাকি হয়ে গেছে বহুদিন আগেই। তবে কী রয়েছে বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলের গভীরে? কলম্বাসের সময় থেকে যা আজও মানুষকে ভাবিয়ে চলেছে।এতবছর ধরে নানা সময়ে বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন সাক্ষ্যপ্রমাণসহ বহুবার এর রহস্য ভেদ করার চেষ্টা করেছেন কিন্তু সন্তোষজনক সমাধান কেউই মানুষের সামনে রাখতে পারেন নি।


আসুন জেনে নিই বারমুডা ট্রাইঙ্গেলের বিষয়ে এখনও অবধি পাওয়া তথ্যের পরিসংখ্যান।

বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল
source: Adspecks


বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল সম্পর্কে আমরা যা জানি


১. এটি উত্তর আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র, বারমুডা এবং গ্রেটার অ্যান্টিলিস (কিউবা, হিস্পানিয়োলা, জামাইকা এবং পুয়ের্তো রিকো) দ্বীপপুঞ্জের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূল দ্বারা বেষ্টিত উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের একটি অঞ্চল।

file 20200908 18 oxks10.jpg?ixlib=rb 1.1
source: the Conversation

২. বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলর সঠিক সীমানা সর্বজনীনভাবে একমত নয়। মোট ক্ষেত্রফলের সীমাবদ্ধতা 500,000 থেকে 1,510,000 বর্গমাইল (1,300,000 এবং 3,900,000 বর্গকিলোমিটার) এর মধ্যে রয়েছে। সমস্ত অনুমানের দ্বারা, অঞ্চলটির একটি অস্পষ্ট ত্রিভুজাকার আকার রয়েছে।


৩.বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল কোনও বিশ্বের মানচিত্রে উপস্থিত হয় না এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ভূগোলিক নামসমূহের বোর্ড বারমুডা ট্রায়াঙ্গলটিকে আটলান্টিক মহাসাগরের একটি সরকারী অঞ্চল হিসাবে স্বীকৃতি দেয় না।

বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল
source: 9News

৪. যদিও উনিশ শতকের মধ্যভাগে এই অঞ্চলে অব্যক্ত ঘটনাবলির খবর পাওয়া যায়, তবে “বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল” শব্দটি 1964 সাল পর্যন্ত কার্যকর হয়নি। ভিনসেন্ট গ্যাডিসের একটি মণ্ডল পত্রিকার নিবন্ধে এই বাক্যটি প্রথম মুদ্রণে প্রকাশিত হয়েছিল, যিনি এই বাক্যটি ব্যবহার করেছিলেন। একটি ত্রিভুজাকৃতির অঞ্চলটি বর্ণনা করতে “যা কোনও চিহ্ন ছাড়াই শত শত জাহাজ এবং বিমান ধ্বংস করেছে।”


৫।আটলান্টিক মহাসাগরের যে কোনও তুলনামূলক অঞ্চলের তুলনায় বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল বৃহত্তর ফ্রিকোয়েন্সি নিয়ে অস্পষ্টতা দেখা যায় না।এই অঞ্চলে কমপক্ষে দুটি ঘটনা মার্কিন সামরিক নৈপুণ্যের সাথে জড়িত। ১৯১৮ সালের মার্চ মাসে ব্রাজিল থেকে মেরিল্যান্ডের বাল্টিমোরের পথে ইউএসএস সাইক্লোপস বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের অভ্যন্তরে অদৃশ্য হয়ে গেল। নিখোঁজ হওয়ার জন্য কোনও ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি, এবং কোনও ধ্বংসস্তূপ পাওয়া যায়নি।

প্রায় ২৭ বছর পরে, আমেরিকান লেওটের অধীনে বোমারু বিমানের একটি দল (সম্মিলিতভাবে ফ্লাইট ১৯ নামে পরিচিত)। চার্লস ক্যারল টেলর বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের উপরে আকাশসীমায় অদৃশ্য হয়ে গেল। সাইক্লপসের ঘটনার মতো, কোনও ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি এবং কোনও ধ্বংসস্তূপ পাওয়া যায়নি।
চার্লস বার্লিটজ তার সর্বাধিক বিক্রিত বই দ্য বারমুডা ট্রায়াঙ্গল (১৯৭৪)-এ বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলর কিংবদন্তি জনপ্রিয় করেছিলেন। বইটিতে বার্লিটজ দাবি করেছে যে আটলান্টিসের বিবর্ণ হারিয়ে যাওয়া দ্বীপটি নিখোঁজ হওয়ার সাথে জড়িত ছিল।


৬। ২০১৩ সালে ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ডলাইফ ফান্ড (ডাব্লুডাব্লুএফ) সামুদ্রিক শিপিং লেনগুলির একটি বিস্তৃত অধ্যয়ন পরিচালনা করেছে এবং নির্ধারণ করেছে যে বারমুডা ট্রায়াঙ্গল বিশ্বের দশটি বিপজ্জনক জলরাশির মধ্যে একটি নয়।
বারমুডা ট্রায়াঙ্গল সমুদ্র এবং বায়ু উভয়ভাবেই ভারী দৈনিক ট্র্যাফিক বজায় রাখে।

1608098467136
ফ্লাইট ১৯ যা বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলে হারিয়ে যায় Source: traveler>com.au


৭। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেল বিশ্বের অন্যতম ভারী ভ্রমণ শিপিং লেন।অ্যাজোনিক লাইনটি মাঝে মাঝে বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলর মধ্য দিয়ে যায়, ২০ শতকের শুরুর দিকের সময়কালে। অ্যাগ্রোনিক লাইনটি পৃথিবীর পৃষ্ঠের এমন একটি জায়গা যেখানে সত্য উত্তর এবং চৌম্বকীয় উত্তর একত্রিত হয় এবং কোনও কম্পাসে চৌম্বকীয় পতনের জন্য অ্যাকাউন্ট করার প্রয়োজন নেই।

৮।বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলে ঘন ঘন ক্রান্তীয় ঝড় এবং হারিকেনের তান্ডব পরিলক্ষিত হয়। বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয় মেক্সিকান উপসাগরীয় ধারা যা স্থানীয় আবহাওয়ার তীব্র পরিবর্তনের কারণ হিসাবে পরিচিত।

৯।আটলান্টিক মহাসাগরের গভীরতম বিন্দু, মিলওয়াকি গভীরতা বারমুডা ত্রিভুজের মধ্যে অবস্থিত। পুয়ের্তো রিকো ট্রেঞ্চ মিলওয়াকি গভীরতায় 27,493 ফুট।


বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল আজও রহস্যে ভরা কেন?

বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল অদৃশ্য হয়ে যাওয়া জাহাজ এবং বিমানের সঠিক সংখ্যা জানা যায়নি।অনুমান করা হয় এখনও অবধি ৫০ টি জাহাজ এবং ২০টি বিমান সেই রহস্যময় ত্রিভুজের গভীরে নিখোঁজ।যদিও নিখোঁজ হওয়া কোন জাহাজ বা বিমানের ধ্বংসাবশেষই উদ্ধার করা যায়নি।
বারমুডা ট্র্যাঙ্গেল মেক্সিকান উপসাগরের উষ্ণ সমুদ্র স্রোতের দাপটে আবহাওয়ার বড়সড় রকমফেরের কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে কিনা তাও স্পষ্ট করে বলতে পারেননি কোন বিজ্ঞানী।

Ocean The Bermuda Triangle Rainbow 2389580 1
source: 30A.com

অতি সম্প্রতি বি বি সি ইতিহাস চ্যানেলের একটি অনুষ্ঠানের উপর ভিত্তি করে একটি তথ্যচিত্র নির্মিত হয়েছে, যাতে দেখানো হয় যে বারমুডা ট্রায়াঙ্গেলের গভীরে রয়েছে একটি তলিয়ে যাওয়া শহর যার মধ্যিখানে বিরাজ করছে সুউচ্চ প্রাচীন পিরামিড। সেই পিরামিডের দেওয়ালে গভীর গর্তের মধ্যে সমুদ্র স্রোত প্রবেশের ফলেই নাকি তৈরি হয়েছে ঘূর্ণি। তাতেই বিলীন হয়ে গিয়েছে সমস্ত দুর্ঘটনার প্রমাণ। বলা বাহুল্য খুব সীমিত বাস্তব তথ্য পাওয়া গেলেও শেষ অবধি এই সমাধান ও জট খলার জন্য পর্যাপ্ত নয়। শেষ অবধি পাওয়া খবরে একদল মার্কিন গবেষক জানিয়েছেন যে সমুদ্রের নীচে ওই অংশে ব্ল্যাক হোলের মতো বিপুল কোন গহ্বর থাকার সম্ভাবনা রয়েছে, যা মিথেন গ্যাসের আবরণী দ্বারা দুর্ভেদ্য। ভবিষ্যতে আরও প্রমাণ সহ বারমুডার রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করা হবে বলেও বিজ্ঞানীদের আশ্বাস।

বারমুডা ট্র্যাঙ্গেলের গল্প আপনি কোন কোন বিখ্যাত লেখায় পড়েছেন? অবশ্যই জানান কমেন্ট বক্সে। সেই সঙ্গে আপনার যদি নিজস্ব কোন সমাধান থাকে যা আপনি এই রহস্যভেদে যোগ করতে চান তা সকলের সঙ্গে শেয়ার করুন।

আরও পড়ুনঃ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here