Heavy fire on the floors of the hotel.

উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউয়ের বিলাসবহুল হোটেল লেভানা স্যুটে আগুন লেগেছে। আগুনে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে এবং 1 জন পুরুষ ও 1 জন মহিলার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। আগুনে আহত 7 জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই হোটেলটি হযরতগঞ্জ এলাকায়। এখনও হোটেলে আটকে রয়েছেন বহু মানুষ। ফায়ার ব্রিগেড ঘটনাস্থলে পৌঁছে হোটেল থেকে লোকজনকে সরিয়ে আগুন নেভানোর কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

হোটেলের কক্ষের জানালার কাঁচ ভেঙে লোকজনকে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লেগেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে যে মেঝেতে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে সেখানে 30টি কক্ষ রয়েছে। এর মধ্যে 18টি রুম বুক করা হয়েছে। দুর্ঘটনার সময় অবশ্যই 40 থেকে 45 জন সেখানে ছিলেন।

অগ্নিদগ্ধ হল হোটেল!

হোটেলে উদ্ধার অভিযান চলছে। জানা গেছে, 214 নম্বর কক্ষে একটি পরিবার আটকা পড়েছে। একটি কক্ষে দুই ব্যক্তি অজ্ঞান হয়ে পড়ে। চতুর্থ তলায় শুধু বার আছে। কাটার দিয়ে চশমা কাটা হচ্ছে। হোটেল থেকে উদ্ধার হওয়া সবাইকে অ্যাম্বুলেন্সে করে হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। সকাল ৬টার দিকে হোটেল থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখা যায় বলে জানা গেছে। এলার্ম বেজে উঠলে লোকজন বিষয়টি জানতে পারে।

আগুন হোটেলের তৃতীয় তলায় শুরু হয় এবং মুহূর্তের মধ্যে পুরো হোটেলে ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে ফায়ার সার্ভিসের প্রায় 20টি গাড়ি। জানালা দিয়ে হোটেলে ঢুকে লোকজনকে বের করার চেষ্টা করছেন ফায়ার ব্রিগেডের কর্মীরা। আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এ পর্যন্ত হোটেল থেকে ৭ জনকে সরিয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বলা হচ্ছে, হোটেল লেভানা স্যুট সম্পূর্ণ ঠাসা। হোটেলের ভেতরে আটকে পড়া লোকজনকে বের করে আনার জন্য জানালার কাঁচ ভেঙে ফেলাই একমাত্র বিকল্প। এমন পরিস্থিতিতে জানালার কাঁচ কাটার জন্য মেশিন ডাকা হয়েছে।

হোটেলে ধোঁয়া ওঠার মধ্যে ফায়ার ব্রিগেড উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে। ধোঁয়ার কারণে ফায়ার ব্রিগেডের লোকজনও বেশ সমস্যায় পড়েছেন। হোটেল থেকে ধোঁয়ার কুণ্ডলী বের হচ্ছে, মনে হচ্ছে ভেতরে আগুন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার ও ভেতরে আটকে পড়া মানুষের মুখোশ এবং ফায়ার ব্রিগেডের কর্মীদেরও ডাকা হয়েছে।

ফায়ার ব্রিগেড হোটেলে আটকে পড়া কয়েকজনকে দড়ি দিয়ে বেঁধে হোটেলের দ্বিতীয় ও তৃতীয় তলা থেকে সিঁড়ির সাহায্যে বের করে। এ কাজে ফায়ার ব্রিগেডকে বেশ ঝামেলা পোহাতে হয়। যেহেতু হোটেলটি সম্পূর্ণ প্যাক করা হয়েছে, শুধুমাত্র জানালা দিয়েই প্রবেশ করা যায়। কিন্তু জানালার বাইরের লোহা কেটে এবং আয়না ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করা খুবই কঠিন কাজ বলে প্রমাণিত হচ্ছে।

সকালে ধোঁয়া উঠতে দেখে হোটেলের ভেতরে উপস্থিত কয়েকজন নিজ থেকেই দৌড়ে বেরিয়ে যান। এসময় কয়েকজন কর্মচারীও পালিয়ে যায়। এর পর ফায়ার ব্রিগেড আসার পর কয়েকজনকে সরিয়ে নেওয়া হয়। হোটেলের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসা এক অতিথি জানান, হঠাৎ ধোঁয়া বের হতে দেখে তিনি দৌড়ে বেরিয়ে যান। তিনি বলেন, ভেতরে অনেক লোক উপস্থিত রয়েছে। শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এক কর্মচারী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here