নয়াদিল্লি রেলস্টেশনে এক মহিলা গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। অভিযোগ রেলওয়ের বিদ্যুৎ বিভাগে কর্মরত কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, রাত আড়াইটার দিকে সেই নির্যাতিতার ফোন আসে। কর্মীরা তাকে খোঁজার চেষ্টা করলে প্রথমে তাকে পাওয়া যায়নি। মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করে দেখা যায় যে তিনি নয়াদিল্লি রেলওয়ে স্টেশনের 8-9 নম্বর প্ল্যাটফর্মে দাঁড়িয়ে আছেন।

অবিলম্বে এসএইচও/এনডিআরএস কর্মীদের সাথে 8-9 নম্বর প্ল্যাটফর্মে পৌঁছেছিলেন, যেখানে 30 বছর বয়সী সেই মহিলা, যিনি ফোন করেছিলেন, তিনি দাঁড়িয়ে ছিলেন। ফরিদাবাদের বাসিন্দা সেই নির্যাতিতা জানান যে, তিনি গত এক বছর ধরে স্বামীর থেকে আলাদা থাকেন এবং বিবাহবিচ্ছেদের জন্য তার আদালতে মামলা চলছে। প্রায় দুই বছর আগে কমন ফ্রেন্ডের মাধ্যমে এক ছেলের সংস্পর্শে আসেন। তিনি সেই মহিলাকে বলেছিলেন যে তিনি একজন রেলওয়ের কর্মচারী এবং তাকে চাকরি করে দিতে পারেন। ফোনে কথা বলা শুরু হয় দুজনের।

21 জুলাই বৃহস্পতিবার, তিনি তার ছেলের জন্মদিন উদযাপন এবং একটি নতুন বাড়ি কেনার জন্য আয়োজিত একটি পার্টিতে যোগ দিতে ফোন করেছিলেন সেই মহিলাকে। রাত 10.30 টার দিকে তিনি মেট্রোতে করে কীর্তি নগরে আসেন, যেখান থেকে অভিযুক্তরা তাকে নয়াদিল্লি রেলওয়ে স্টেশনের 8-9 নম্বর প্ল্যাটফর্মে নিয়ে যায়। অভিযুক্তরা তাকে বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মীদের জন্য তৈরি একটি ঝুপড়িতে বসতে বলে।

গণধর্ষণ

এর পর তার আরেক বন্ধু সেই কুঁড়েঘরের মতো ঘরের ভেতরে এসে ভিতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। তারপর তারা পালাক্রমে ওই নারীকে গণধর্ষণ করে। অভিযুক্তের দুই সহযোগী বাইরে থেকে কক্ষ পাহারা দিচ্ছিল। এই বিষয়ে অবিলম্বে ব্যবস্থা গ্রহণ করে, পুলিশ IPC -র 376D/342 ধারার অধীনে একটি FIR নথিভুক্ত করেছে। ফোনকলের 2 ঘন্টার মধ্যে, চার অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে বিচার বিভাগীয় হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

অভিযুক্তদের নামগুলি নিচে উল্লেখ করা হল

  • সতীশ কুমার (35 বছর)
  • বিনোদ কুমার (38 বছর)
  • মঙ্গল চন্দ মীনা (33 বছর)
  • জগদীশ চন্দ (37 বছর)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here