লিওনেল মেসির স্বপ্নপূরণ অনেক আগেই ঘটে যেত যদি…..

স্পেনে একটি ফ্রেন্ডলি ম্যাচে এস্তোনিয়ার বিপক্ষে 5-0 গোলে জয়ের পর আর্জেন্টিনার হয়ে প্রথমবারের মতো পাঁচটি গোল করে আন্তর্জাতিক ফুটবলে সর্বাধিক গোলদাতার তালিকায় চতুর্থ স্থানে পৌঁছেছেন লিওনেল মেসি । গত 33 ম্যাচ একটানা অপরাজিত আর্জেন্টিনা দল। মেসি প্রথমার্ধে একটি পেনাল্টি কিক সহ দুটি গোল করেন এবং তারপরে দ্বিতীয়ার্ধে আরও তিনটি গোল করে তার আন্তর্জাতিক গোলের সংখ্যাকে বাড়িয়ে 86 তে নিয়ে যান।

আর্জেন্টাইন অধিনায়ক হাঙ্গেরির প্রাক্তন ফুটবলার ফ্রেনেক পুসকাসকে ছাপিয়ে গেছেন, যার 84 গোল রয়েছে। পর্তুগালের কিংবদন্তি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো 117 গোল করে আন্তর্জাতিক ফুটবলে এখন সর্বোচ্চ গোলদাতা হিসেবে এই তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন। তার পরে রয়েছেন ইরানের আলি দেই (109) এবং মালয়েশিয়ার মুখতার দাহারি (89)।

সেই সূত্রে লিওনেল মেসি ভক্তদের আলোচনায় এসেছে এক নতুন জল্পনা। তাদের মতে মেসি যদি 2005 সালে পাকাপাকিভাবে স্পেনের নাগরিকত্ব বেছে নিতেন বা যদি স্পেনের অফার গ্রহণ করতেন, তাহলে হয়তো আজকে মেসির কাছে অন্তত তিনটে বিশ্বকাপ এবং 12 টা ব্যালন ডর থাকত। আন্তর্জাতিক গোলের সংখ্যাও রোনাল্ডোর থেকে বেশি হতো। কারণ আর্জেন্টাইন দল সবসময়ই মেসি নির্ভর থেকেছে।

লিওনেল মেসি

এখন দলে ভারসাম্য বাড়ায় মেসির গোলসংখ্যা এবং ম্যাচের প্রদর্শন যেন আরও অনেক পরিণত। তাই তিনি স্পেনের মতো একটা আন্তর্জাতিক দলের সদস্য হলে হয়তো আন্তর্জাতিক স্তরে আরও অনেক বেশি সাফল্য পেতেন। যদিও রোনাল্ডো সমর্থকেরা এই কথার বিরুদ্ধাচরণ করেছে এবং জানিয়েছে রোনাল্ডোও যদি ফ্রান্সের মতো কোনো দলের সদস্য হতেন, তিনিও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এমন কিছু করে দেখাতেন যা একটা ইতিহাস হয়ে থেকে যেত। যদিও এখনও তার বিপরীত কিছু নেই। তাই এসব কথা না তোলাই শ্রেয়।

এর আগে অধিনায়ক আর্জেন্টিনার হয়ে কখনও পাঁচ গোল করেননি মেসি। তাই আর্জেন্টাইন অধিনায়কের সময় যে খুব ভালো যাচ্ছে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here