PFI conspiracy – প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা করে ভারতকে একটি ইসলামিক দেশ বানানোকে ঘিরে চলছে বড় ষড়যন্ত্র!

বিহারের রাজধানী পাটনায় PFI-এর ছদ্মবেশে একটি বড় সন্ত্রাসী প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ফাঁস হয়েছে। অভিযান চালিয়ে সন্দেহভাজন দুই সন্ত্রাসীকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের কাছ থেকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ নথি উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্যে 2047 সালের মধ্যে ভারতকে একটি ইসলামিক রাষ্ট্রে পরিণত করার ক্ষেত্রে PFI-এর ষড়যন্ত্রও উন্মোচিত হয়েছে। এর জন্য মুসলিম যুবকদের অস্ত্র ব্যবহার, ধর্মীয় উম্মাদনা ছড়ানো এবং সহিংসতা উসকে দেওয়ার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছিল।

পাটনা পুলিশ জানিয়েছে যে গোয়েন্দা সংস্থার তথ্যের ভিত্তিতে, 11 জুলাই ফুলওয়ারিশরিফ এলাকার নয়া টোলায় অবস্থিত পপুলার ফ্রন্ট অফ ইন্ডিয়া (PFI) এর অফিসে অভিযান চালানো হয়েছিল। এ সময় সেখান থেকে অনেক সন্দেহজনক নথি ও অপরাধমূলক সামগ্রী উদ্ধার করা হয়। এতে PFI-এর মিশন-2047 সম্পর্কিত একটি গোপন নথিও পাওয়া গেছে। এতে আগামী 25 বছরে ভারতকে ইসলামিক রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্রের কথা বলা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে সন্দেহভাজন দুই সন্ত্রাসীকে আটক করেছে পুলিশ। তাদের একজনের নাম মোহাম্মদ জালালুদ্দিন এবং অন্যজনের নাম আতহার পারভেজ। জালালউদ্দিন ঝাড়খণ্ড পুলিশের একজন পুলিশ অফিসার ছিলেন এবং সম্প্রতি অবসর নিয়েছেন। একই সঙ্গে নিষিদ্ধ সন্ত্রাসী সংগঠন সিমির সক্রিয় সদস্য ছিলেন আতহার পারভেজ। তার ভাই বোমা বিস্ফোরণ মামলায় জেলে গেছে। আতহার নিজেও একটি মামলায় জামিনে রয়েছেন।

Back to Back Murders of PFI

অনেক সহিংস ঘটনায় PFI-এর নাম এসেছে

সন্ত্রাসী সংগঠন সিমি নিষিদ্ধ হওয়ার পর তৈরি হয় ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন। 2013 সালে সন্ত্রাসবাদী ইয়াসিন ভাটকলের গ্রেপ্তারে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের শিরদাঁড়া ভেঙে যায়। সূত্রের খবর অনুযায়ী, ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের পতনের পর দেশের বিভিন্ন রাজ্যে PFI এবং তার সহযোগী সংগঠন সোশ্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টি অফ ইন্ডিয়াকে শক্তিশালী করার কাজ চালাচ্ছে। কেরালার দুটি এবং কর্ণাটকের একটি সংস্থাকে একীভূত করে PFI গঠিত হয়েছিল। গত কয়েক মাসে সংঘটিত বেশ কয়েকটি সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় PFI-এর নাম উঠে এসেছে। তার তদন্ত চলছে। তবে PFI কিন্তু এখনও দেশে নিষিদ্ধ করা হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here