লখনউ সুপার জায়ান্টস এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের মধ্যে খেলাটি অত্যন্ত রোমাঞ্চকরভাবে শেষ হয়। কেএল রাহুলের দল বুধবারের এই ম্যাচে জিতেছে ঠিকই কিন্তু শিরোনামে এসেছে কেকেআরের রিঙ্কু সিং। প্রথমে ব্যাট করে কুইন্টন ডি ককের সেঞ্চুরি এবং অধিনায়ক কেএল রাহুলের অর্ধশতকের সাহায্যে কলকাতার সামনে 211 রানের লক্ষ্যমাত্রা রেখেছিল লখনউ।

এই স্কোর চেস করতে নেমে KKR 20 ওভারে 208 রান অবধি পৌঁছোয়। শেষ কয়েক ওভারে কলকাতার বাঁহাতি ব্যাটসম্যান রিংকু সিং লখনউ সুপার জায়ান্টস শিবিরে তোলপাড় সৃষ্টি করেন। 15 বলে 2 টি চার এবং 4 টি ছক্কায় 40 রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেও শেষরক্ষা করতে পারলেন না রিংকু।

এভিন লুইসের এক অবিশ্বাস্য ক্যাচ স্বপ্নভঙ্গ করে দেয় সমগ্র কলকাতার সমর্থকদের। উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ের বাসিন্দা রিঙ্কু সিংয়ের গল্পে সংগ্রামের কোনও শেষ নেই। বাবা ঘরে ঘরে সিলিন্ডার পৌঁছে দেওয়ার কাজ করেন, এক ভাই অটো রিকশা চালান এবং অন্যজন কোচিং সেন্টারে কাজ করেন। তারা মোট 5 ভাই বোন।

রিংকুর পড়াশোনায় তেমন আগ্রহ ছিল না, যার কারণে ক্রিকেটকে একপ্রকার নিজের জীবন বানিয়ে ফেলেছিলেন। রিংকু একটি সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন যে 2012 এর আগে যখন তিনি ক্রিকেট খেলতেন তখন তার বাবা তাকে বারণ করতেন, কিন্তু সে বছর তিনি একটি টুর্নামেন্টে একটি বাইক জিতেছিলেন যার পরে তার বাবার মানসিকতার পরিবর্তন হয়। ওই বাইকটি রিংকুর বাবা সিলিন্ডার সরবরাহ করতে ব্যবহার করতেন।

রিংকু আরও জানান যে একবার তিনি তার ভাইয়ের কাছে চাকরি চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষমেশ নিজের শ্রেষ্ঠ জায়গাতেই ফিরে আসেন রিঙ্কু। 2017 সালের আইপিএল নিলামে রিংকুকে প্রথম পাঞ্জাব কিংস কিনেছিল, কিন্তু সে বছর তিনি একটিও ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি। সেই সময় রিংকুকে 10 লাখ টাকা বেস প্রাইস দিয়ে কিনেছিল পাঞ্জাব।

রিঙ্কু সিং

এর পরে, 2018 সালে কেকেআর এই খেলোয়াড়ের জন্য 80 লক্ষ টাকা খরচ করেছিল। 2018 সাল থেকে রিংকু কেকেআর-এর একটি অংশ হয়ে যান। তাও আইপিএল 2022 মেগা নিলামে তার জন্য মাত্র 55 লক্ষ টাকা বিড করে কেকেআর। আইপিএলের প্রাথমিক দিকে, রিঙ্কু অনেক ম্যাচ খেলার সুযোগ পাননি, তবে এই বছর তিনি 7 টি ম্যাচ খেলেছেন যাতে তিনি 34.80 গড়ে 174 রান করেছেন।

আমরা যদি রিংকুর আইপিএল ক্যারিয়ারের দিকে তাকাই, তিনি গত 6 বছরে মাত্র 17টি ম্যাচ খেলেছেন যার মধ্যে তিনি 251 রান করেছেন। তিনি নিজেকে প্রমাণ করতে সবসময় উদ্যত থাকেন। ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি রিংকু তার দুর্দান্ত ফিল্ডিংয়ের জন্যও পরিচিত। কিন্তু ব্যান কেন করা হয়েছিল তাকে?তার উপর 2019 সালে বিসিসিআই তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছিল।

আসলে, সেই সময় তিনি বিসিসিআই-এর অনুমতি ছাড়াই আবুধাবি ক্রিকেটের রমজান টি-টোয়েন্টি কাপে অংশ নিয়েছিলেন। রিংকুর এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ হয়ে বিসিসিআই তার উপর তিন মাসের নিষেধাজ্ঞা জারি করে।যাই হোক সবশেষে এটুকুই সত্যি যে 2022 আইপিএল থেকে কলকাতার বিদায় হলেও ভারতীয় মিডিল অর্ডারে কিছুটা শক্তি ফেরানোর পেছনে ভবিষ্যতে অবদান রাখতে পারেন রিঙ্কু সিং।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here