কম স্পার্ম কাউন্ট পরীক্ষা ছাড়াই কিভাবে বুঝবেন?

বীর্যের কম শুক্রাণুর সংখ্যা সরাসরি আপনার সন্তান ধারণের ক্ষমতাকে প্রভাবিত করে। কম স্পার্ম কাউন্ট মানে হল যে অর্গ্যাজমের পরে আপনি যে বীর্য নিঃসৃত করছেন তাতে শুক্রাণুর সংখ্যা স্বাভাবিকের চেয়ে কম। দ্বিতীয় শর্তটি হল যখন শুক্রাণুর সংখ্যা শূন্য। এই অবস্থাকে অ্যাজোস্পার্মিয়া বলা হয়। যদি আপনার শুক্রাণুর সংখ্যা প্রতি মিলিমিটার বীর্যের 15 মিলিয়নের কম হয়, তাহলে আপনার শুক্রাণুর সংখ্যা কম বলে বিবেচিত হয়। তবে শুক্রাণুর সংখ্যা কম হওয়া খুব একটা উদ্বেগের বিষয় নয়। অনেক পুরুষের শুক্রাণুর সংখ্যা কম থাকলেও সন্তান ধারণ করতে সক্ষম হয়। যাইহোক, ডাক্তারের সাথে পরীক্ষা করে আপনি জানতে পারবেন স্পার্ম কাউন্ট কম কি না। এখানে প্রদত্ত কিছু লক্ষণও এটি নির্দেশ করতে পারে।

সব পরীক্ষা স্বাভাবিক হওয়ার পরও যদি আপনার সঙ্গীর সন্তান জন্ম দিতে সমস্যা হয়, তাহলে আপনার স্পার্ম কাউন্ট কম হতে পারে। MayoClinic.org-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, কিছু অভ্যন্তরীণ সমস্যাও কিছু পুরুষের শুক্রাণুর সংখ্যা কম হওয়ার কারণ হতে পারে। যেমন, হরমোনের ভারসাম্য বিঘ্নিত হওয়া বা এমন কোনো অবস্থা যার কারণে শুক্রাণুর পথ বন্ধ হয়ে যায়। শুক্রাণুর সংখ্যা কম হওয়ার কিছু লক্ষণ হতে পারে…

অভ্যাস কমিয়ে দিতে পারে স্পার্ম কাউন্ট!
  • ইরেকশনের অভাব (ইরেক্টাইল ডিসফাংশন), সেক্স করার ইচ্ছা না থাকা।
  • অণ্ডকোষের অংশে ব্যথা বা ফোলাভাব বা ফুলে যাওয়া।
  • মুখ ও শরীরের চুল পড়া ক্রোমোজোমাল বা হরমোনের সমস্যার লক্ষণ হতে পারে।
  • ঘন ঘন শ্বাসযন্ত্রের সংক্রমণ।
  • স্তনের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি ।

বি: দ্র: – এখানে উল্লেখিত লক্ষণগুলো অন্য কোনও কারণেও হতে পারে। অগত্যা বন্ধ্যাত্ব বা কম শুক্রাণুর সংখ্যার কারণে আপনি যদি সন্তান ধারণে সমস্যার সম্মুখীন হন, তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন, পরীক্ষা করান এবং তার ভিত্তিতে চিকিৎসা করান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here