নিজস্ব সংবাদদাতা: বর্তমানে কোভিডের দ্বিতীয় সংক্রমণের ঢেউয়ে দেশজুড়ে শুধুই অক্সিজেনের আকাল। রাজ্যগুলিকে ঠিকমতো কেন্দ্র সরকার সাহায্য করছে না বলেও একাধিকবার অভিযোগ উঠেছে। এহেন সঙ্কটজনক পরিস্থিতির মধ্যে প্রত্যেক দিন সামনে আসছে নতুন নতুন সমস্যা। দেখা যাচ্ছে, প্রথমে বাড়িতেই শ্বাসকষ্ট শুরু হচ্ছে করোনা আক্রান্তের। তারপর অ্যাম্বুলেন্সের সঙ্গে দরাদরি করে অনেক কষ্টে আ্যাম্বুলেন্স জোগাড় হলেও হাসপাতাল, বেড, অক্সিজেন- সব পাওয়া যাবে কিনা নিশ্চিত নয়। এই ছবিই প্রত্যেকদিন প্রকটতর হয়ে উঠছে। যার ফলে সঠিক সময়ে বেড, অক্সিজেন না পেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছেন বহু রোগী।

গোটা দেশের পাশাপাশি প্রত্যেক দিন এ রাজ্যেও মৃত্যুর বর্ধিষ্ণু সংখ্যায় সেই অভাবই আরও বেশি করে প্রমাণ হচ্ছে। তাই, এবার বাড়িতে মুমূর্ষু রোগীকে অক্সিজেন দিতে অভিনব উদ্যোগ কলকাতা শহরে। একফোনেই বাড়িতে হাজির হবে অক্সিজেন। থাকবে কনসেন্ট্রেটর। রোগীর অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালেও পৌঁছে দেওয়া হবে তাঁকে। করোনা যুদ্ধে অক্সিজেন সংকটের মোকাবিলায় নিখরচায় এমনই পরিষেবা চালু হল কলকাতায়।

হাসপাতালে পরিমিত বেড নেই। তাই বেডের সঙ্কটে বাড়িতেই চিকিৎসা চলছে করোনা আক্রান্ত বহু রোগীর। তাঁদের মধ্যে অনেকেরই শ্বাসকষ্ট শুরু হচ্ছে বাড়িতেই। ঠিক সময়ে অক্সিজেন দেওয়া না গেলেই বাড়ছে বিপদ। তাই সেই সব রোগীদের জন্য এই বিশেষ পরিষেবা চালু হয়েছে। ফোন পেলেই শ্বাসকষ্টে ভোগা আক্রান্তের বাড়িতে তড়িঘড়ি পৌঁছে যাচ্ছে অ্যাম্বুলেন্স। ২৪ ঘন্টা এই পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে একেবারে নিখরচায়। এমনভাবেই অক্সিজেনের সঙ্কটকালে শহরের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ নিয়েছে ‘কোভিড কেয়ার নেটওয়ার্ক’।

সংগঠনের তরফে বিশিষ্ট চিকিৎসক তথা লিভার ফাউন্ডেশনের কর্তা অভিজিৎ চৌধুরী বলেন, ‘রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য বিভাগ আমাদের সাহায্য করছে দুটি অ্যাম্বুলেন্স দিয়ে। সেই অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যেই থাকছে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরও। থাকছেন প্রশিক্ষিত কর্মীও।’ নির্দিষ্ট নম্বরে ফোন করে কেউ যদি জানান যে বাড়ির সদস্য শ্বাসকষ্টে ভুগছেন তাই এই গাড়ি পৌঁছে যাবে। অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর দিয়ে সেই ব্যক্তির কষ্ট লাঘব করার চেষ্টা হবে। কষ্ট কিছুটা লাঘব হলে তাঁকে কাছের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে সেই অ্যাম্বুলেন্সে করেই।

আপাতত দুটি অ্যাম্বুলেন্সে ১৫ টি অক্সিজেন কন্সেন্ট্রেটর দিয়ে কাজ শুরু করছে এই ‘অক্সিজেন অন হুইলস’ প্রকল্প। লক্ষ্য রয়েছে মোট ৫০ টি কন্সেন্ট্রেটর নিয়ে কাজ করার। অনেকের মতে, এই ধরনের উদ্যোগ অক্সিজেনের অভাবে ভুগতে থাকা মানুষ জনকে মৃত্যুর মুখ থেকে বাঁচাতে সাহায্য করবে। ৭০৪৪০ ৪১০১০ ও ৭০৪৪০ ৪১০১৫- এই দুই নম্বরে ফোন করে যোগাযোগ করলেই এই পরিষেবা মিলবে বলে জানা গিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here