ইতিহাস তৈরি হল শনিবার। দশ হাজার ফুট উচ্চতায় বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘ ‘অটল টানেল-এর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একদিকে মানুষের যাতায়াতের সুবিধা অন্য দিকে জাতীয় প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে শক্তিশালী বার্তা প্রেরণ – এই টানেলের তাৎপর্য অসীম।

দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর নামেই নামাঙ্কিত করা হয়েছে এই সুড়ঙ্গপথের। হিমাচল প্রদেশের মানালি থেকে লাহুল-স্পিতি উপত্যকা পর্যন্ত বিস্তৃত ৯.০২ কিমি দীর্ঘ এই ‘অটল টানেল’। এর মাধ্যমে মানালি ও লেহ-র মধ্যে দূরত্ব প্রায় ৪৬ কিলোমিটার কমে যাবে বলে জানা গিয়েছে। তার ফলে যাতায়াতের সময়ও চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা কমবে। প্রকল্পের চিফ ইঞ্জিনিয়ার কেপি পুরুষোত্তম জানিয়েছেন, এই টানেল ‘আত্মনির্ভর’ ভারতের এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে, অশ্বক্ষুরাকৃতি এই টানেলের ভিতরে রয়েছে দুই লেনের রাস্তা। দু’দিকে ফুটপাথ। এই টানেল দিয়ে দৈনিক ৩ হাজার চারচাকার গাড়ি ও দেড় হাজার ট্রাক প্রতি ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিমি গতিতে যেতে পারবে। পাশাপাশি প্রতি ৫০ মিটার অন্তর ফায়ার রেটেড ড্যাম্পারও বসানো হচ্ছে। ২৫০ মিটার অন্তর থাকছে সিসিটিভি ক্যামেরা। যার সাহায্যে নজরদারি চালানো হবে টানেলের ভিতরে।

কৌশলগতভাবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই অটল টানেল। এর ফলে সবচেয়ে লাভ হবে সেনার। আগে প্রতি বছর ভারী বরফ পড়ার ফলে বছরে প্রায় ছ’মাস লাহুল-স্পিতি ভ্যালির সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যেত। এখন আর সেটা হবে না। খুব সহজেই অস্ত্রশস্ত্র ও খাদ্য পৌঁছে দেওয়া যাবে সীমান্তে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here